কর্ণফুলীতে মাদকের আস্তানায় পুলিশের হানা, উদ্ধার: মাদক সরন্জাম

 মামুন খান : চট্টগ্রাম কর্ণফুলী উপজেলার শিকলবাহায় এক মাদকের আস্তানায় হানা দিয়েছে সিএমপি কর্ণফুলী থানার পুলিশ। এতে অভিযান চালিয়ে মাদক সেবনের কিছু বেশকিছু সরন্জাম ও জিনিসপত্র উদ্ধার করা হয়েছে।
জানা যায়, পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদকসেবীরা পালিয়ে যায় বলে কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি। তবে মাদক স্পট থেকে জব্দ করা হয়েছে কিছু চাউল, ডাল, শার্পএক্সল, বিড়ি, সিগারেট, কোকাকোলা, চিপস, ছবি সম্বেলিত কয়েকটি আইডি কার্ড, মাদক সেবনের সরন্জামসহ বসার সোফা চেয়ার ইত্যাদি। ঐ সময় পুলিশের অভিযান দেখে স্থানীয় লোকজন কানাঘোষা করেন, ফাঁড়ি পুলিশের অভিযানে মাদকের আস্তানা থেকে ডাকাতির মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে।
মঙ্গলবার দুপুরে শিকলবাহা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. আলমগীর হোসেনের নেতৃত্বে পুলিশ সদস্যদের একটি চৌকস টীম মাদকের বিরুদ্ধে শিকলবাহা (৩নং ওয়ার্ড) বোর্ড স্কুলের পাশে কমলা পাড়া গ্রামের এ অভিযান চালান।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শিকলবাহার কমলা পাড়ায় রাজু ও সাদ্দাম নামে দুই মাদকসেবী যুবকের অত্যাচারে এলাকার লোকজন অতিষ্ট। এরা দুজন আশেপাশের এলাকায় মাদকের রাজত্ব কায়েম করছে। এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, এরা শফিউল আলম মেম্বারের অনুসারি ও আপন ভাতিজা হয়। এমনকি রাজুর নেতৃত্বে উঠতি বয়সি ১০/১২ জন মতো বখাটে যুবকরা পিএবি সড়কের মোড়ে সংগঠিত ডাকাতির ঘটনার সাথে জড়িত। এলাকায় প্রকাশ্যে এরা মাদক বিক্রি করে যুব সমাজকে বিপদগ্রস্থ করে তুলেছে। শুধু এলাকার মাদকসেবী যুবকরাই নয়, দূর-দূরান্ত থেকেও মাদকাসক্ত যুবকরা আসে আস্তানায় মাদক সেবনের জন্য।
অনুসন্ধানে উঠে আসে, এরা পার্শ্ববর্তী এলাকার নিয়োগকৃত কতিপয় যুবকদের মাধ্যমে মাদক বিক্রি করছে। এমনকি বিক্রি ও পাচারের কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে নারী ও শিশুদের। এলাকাবাসীর দাবি, এদের রুখতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে এখনই ভূমিকা নিতে হবে। নয়তো এভাবে চলতে থাকলে সমাজ ধ্বংস হয়ে যাবে। সমাজ ধ্বংসের পথে থাকলেও সংশ্লিষ্টদের খারাপ আচরণের কারণে এলাকাবাসী প্রতিবাদ করতে সাহস পাচ্ছেন না। এরা নতুন কৌশলে মাদকের আস্তানা গড়ায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ও বেশ তৎপর রয়েছেন।
জানা যায়, সন্ধ্যা হলেই কমলা পাড়ায় বসে মাদকের আসর। এলাকার জনসাধারণের দৃষ্টি আড়াল করতে বেড়া দিয়ে ভিতরে কুপি জ্বালিয়ে বসে। পূর্ব থেকেই পরিকল্পনা থাকে কোথায় আসর বসবে। এদের আসরে রাত বাড়ার সাথে সাথে বাড়তে থাকে মাদকাসক্তদের সংখ্যা। বর্তমানে এলাকার মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে ফুঁসে উঠেছে। এলাকাবাসীরা দ্রুত এদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রশাসনের কাছে দাবী তুলেছেন।
শিকলবাহা পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. আলমগীর হোসেন জানান, ‘গোপনে কিছু লোক বসে মাদক সেবন করছে এমন সংবাদ পেয়ে আমরা অভিযান চালিয়েছি। যদিও অভিযানের আগাম খবর পেয়েই ওই আস্তানা ছেড়ে গা ডাকা দিয়েছে সেবনকারীরা। পরে সেখানে তল্লাশি চালিয়ে বেশ কিছু জিনিসপত্র উদ্ধার করে নিয়ে এসেছি। পাশাপাশি বিষয়টি উর্ধ্বতন অফিসারদের জানানো হয়েছে।’
এ ব্যাপারে বন্দর জোনের উপ পুলিশ কমিশনার (ডিসি) কামরুল ইসলাম জানান, মাদক নির্মূলে পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে। মাদকের সাথে জড়িত কারো ছাড় নাই। এ ব্যাপারে পুলিশের যথেষ্ট নজরদারী ও অভিযান অব্যাহত রয়েছে।’
PBC24